Do you know anybody who admits to being jealous?, not the your dress is cute I wish I bought it type of jealousy, I’m talking about the my best friend just landed a fantastic opportunity and she gets to travel around the world, meanwhile I’m stuck in a two by four cubicle working countless hours without no recognition, but I have to act like I’m happy for her and not admit I secretly wish it was me instead even though we both know I’m the one who practically pushed her to apply for the job and coached her on how to excel professionally type of jealousy, yeah that one. Nobody likes admitting that they are, because jealousy is the grandchild of insecurities and the step daughter to hatred and God forbid, we would want anyone to perceive us as such, especially when we call ourselves As Muslims .

First things first, it is actually perfectly normal human nature to feel this way, contrary to what people will have you believe, you will at some point in your life experience it and cannot for the most part avoid it even if you tried. Do not fear being jealous, you need to understand it for what it is, address why you feel that way and most importantly know what God says about it.

We are flawed, it is an uncomfortable truth, and we wrestle with three very problematic things that drive our nature, the lust of the flesh, the lust of the eyes and the pride of life. Without the help of the Holy Spirit we are slaves to these beasts, because man is not perfect and will always fall short of the glory of the all-knowing God, the very things that lead us to perform great feats can also lead us to carry out actions that cause great harm, to ourselves and to others, knowing this helps us to understand jealousy better.

Have you ever wondered why we always want what we can have? Why we like nice things, why eating that extra slice of cupcake feels good even though we know we really shouldn’t (I digress lol). It is one thing to look at something and admire it, to appreciate beautiful things, or be proud of someone’s success, ambition, and the need to improve ourselves, this has propelled man’s survival since the start of time. However, it is a completely different ballgame when we start to feel inadequate or have shortcomings about our own lot in life because we perceive that other people have what we don’t.

In a social media driven world we can’t seem to escape other people’s success, and sometimes it sucks. Most people say other people’s success doesn’t speak poorly of you, but I tend to disagree. Life is all about social markers and hierarchies, and to a large extent it determines how you are perceived and treated, case in point you drive a Mercedes, I drive a Toyota both do exactly the same thing but automatically, you can probably assess, if I go on holidays regularly, how many times I eat out a week etc., perception is reality in today’s world, which causes problems, nobody wants anybody to think that they are less than, that annoying pest called pride will just not let us be ,we all want to be seen as the alpha male or the head babe in charge . Nobody wants to be unrecognizable, we all have a need to be celebrated and a need to be seen as important, and when we see someone or know someone who we perceive is just like us or perhaps we think we are better than, ahead of us in the social pecking order be it in money, status, marriage or life we get jealous or envious because we think why not me? Does this sound like you?

Know this, God has no business in who is better than who, or who has more than who and you shouldn’t too (1 John 2:16). God made us originally to be perfectly whole and complete, not needing anything or anyone to validate us. Sadly, sin has made us disconnected and distorted our nature, we have become largely insecure and uncertain about our identity, we have created mechanisms and systems, markers and fleeting things to define our eternal existence, and God forbid we fall short in any of these areas and someone else seems to be getting “A” stars in all, then that green eyed monster rears its ugly ass head, because you see, we say to ourselves, since we do not have such and such therefore we do not matter, but they do, they have an identity but I don’t , they got the job and I didn’t therefore they are more valuable, they have the husband and I don’t therefore they are more appealing and I am not, jealousy and envy combine to form the poisonous cocktail which is hatred, because we conclude that they are somehow more secure and whole than we are because they have what we do not have but desperately desire.

‘’Before I formed you in the womb I knew you, before you were born I set you apart; I appointed you as a prophet to the nations’’ (Jeremiah 1:5). God destined you for a purpose before you had your degree and before you got your worldly success, he didn’t wait for the world to say you a renowned bible scholar, he didn’t wait for you to get the job in a Fortune 500 company, he didn’t wait for you to buy the Maserati for him to deem you worthy for a purpose and an identity, even before your parents met, he knew he was going to use you for a purpose that you were specially designed for, meaning you don’t have to wait for the world to recognize and acknowledge you before you consider yourself a success, you don’t need to get jealous and upset if your friend has something that you don’t have, even if you deserve it because with or without those things if you are aligned with God’s purpose you are still going to be all that God has destined you to be.

Don’t reject yourself, don’t let jealousy overwhelm you, stop fixing your eyes on other people’s lives on social media, stop keeping in touch with your friends only to assess who is where in the pecking order and where you belong. Remember that life is an individual race, you will have your own pain, struggles, frustrations, joys and achievements and so will they, and nobody gets out of life unscathed. Your focus should not be on other people’s blessings but completely on how to please God and do his purpose here on earth.

We are in a very feel good era in the right now, we tell people that blessings are an indication that God loves you ( and they are very much so) but that is not the complete story, I bet if you asked Job he would tell you something completely different. What good is your success to God if he cannot use you as a channel of blessings, that you pay thousands of naira or dollars in tithes doesn’t mean a whole lot to him if you are not manifesting the fruits of the spirit which are love, joy, peace and all that good stuff (John 15:8), and what happens next? You finally get what you’ve been craving, envying and striving for and when you die, eventually you will leave it all and face God who none of those things impress, what will you have to show for your faith? It is important to have goals that we strive for, achievement is the pinnacle of human existence and important to living a fulfilling life to a very large extent, learn to abide in God’s word daily, trust, believe and affirm his timing for your life, so that you are able to guard your heart from things that are just not for you. I also suggest making friends or having mentors who are older and much more experienced than you, I find that they are able to give you a broader perspective on life, and the ups and downs it brings, lastly if jealousy tries to rear its ugly head, take a deep breathe, kick it in the head and say not today Satan(শয়তান), that usually works!

Advertisements

Do you know anybody who admits to being jealous?, not the your dress is cute I wish I bought it type of jealousy, I’m talking about the my best friend just landed a fantastic opportunity and she gets to travel around the world, meanwhile I’m stuck in a two by four cubicle working countless hours without no recognition, but I have to act like I’m happy for her and not admit I secretly wish it was me instead even though we both know I’m the one who practically pushed her to apply for the job and coached her on how to excel professionally type of jealousy, yeah that one. Nobody likes admitting that they are, because jealousy is the grandchild of insecurities and the step daughter to hatred and God forbid, we would want anyone to perceive us as such, especially when we call ourselves Christians.

First things first, it is actually perfectly normal human nature to feel this way, contrary to what people will have you believe, you will at some point in your life experience it and cannot for the most part avoid it even if you tried. Do not fear being jealous, you need to understand it for what it is, address why you feel that way and most importantly know what God says about it.

We are flawed, it is an uncomfortable truth, and we wrestle with three very problematic things that drive our nature, the lust of the flesh, the lust of the eyes and the pride of life. Without the help of the Holy Spirit we are slaves to these beasts, because man is not perfect and will always fall short of the glory of the all-knowing God, the very things that lead us to perform great feats can also lead us to carry out actions that cause great harm, to ourselves and to others, knowing this helps us to understand jealousy better.

Have you ever wondered why we always want what we can have? Why we like nice things, why eating that extra slice of cupcake feels good even though we know we really shouldn’t (I digress lol). It is one thing to look at something and admire it, to appreciate beautiful things, or be proud of someone’s success, ambition, and the need to improve ourselves, this has propelled man’s survival since the start of time. However, it is a completely different ballgame when we start to feel inadequate or have shortcomings about our own lot in life because we perceive that other people have what we don’t.

In a social media driven world we can’t seem to escape other people’s success, and sometimes it sucks. Most people say other people’s success doesn’t speak poorly of you, but I tend to disagree. Life is all about social markers and hierarchies, and to a large extent it determines how you are perceived and treated, case in point you drive a Mercedes, I drive a Toyota both do exactly the same thing but automatically, you can probably assess, if I go on holidays regularly, how many times I eat out a week etc., perception is reality in today’s world, which causes problems, nobody wants anybody to think that they are less than, that annoying pest called pride will just not let us be ,we all want to be seen as the alpha male or the head babe in charge . Nobody wants to be unrecognizable, we all have a need to be celebrated and a need to be seen as important, and when we see someone or know someone who we perceive is just like us or perhaps we think we are better than, ahead of us in the social pecking order be it in money, status, marriage or life we get jealous or envious because we think why not me? Does this sound like you?

Know this, God has no business in who is better than who, or who has more than who and you shouldn’t too (1 John 2:16). God made us originally to be perfectly whole and complete, not needing anything or anyone to validate us. Sadly, sin has made us disconnected and distorted our nature, we have become largely insecure and uncertain about our identity, we have created mechanisms and systems, markers and fleeting things to define our eternal existence, and God forbid we fall short in any of these areas and someone else seems to be getting “A” stars in all, then that green eyed monster rears its ugly ass head, because you see, we say to ourselves, since we do not have such and such therefore we do not matter, but they do, they have an identity but I don’t , they got the job and I didn’t therefore they are more valuable, they have the husband and I don’t therefore they are more appealing and I am not, jealousy and envy combine to form the poisonous cocktail which is hatred, because we conclude that they are somehow more secure and whole than we are because they have what we do not have but desperately desire.

‘’Before I formed you in the womb I knew you, before you were born I set you apart; I appointed you as a prophet to the nations’’ (Jeremiah 1:5). God destined you for a purpose before you had your degree and before you got your worldly success, he didn’t wait for the world to say you a renowned bible scholar, he didn’t wait for you to get the job in a Fortune 500 company, he didn’t wait for you to buy the Maserati for him to deem you worthy for a purpose and an identity, even before your parents met, he knew he was going to use you for a purpose that you were specially designed for, meaning you don’t have to wait for the world to recognize and acknowledge you before you consider yourself a success, you don’t need to get jealous and upset if your friend has something that you don’t have, even if you deserve it because with or without those things if you are aligned with God’s purpose you are still going to be all that God has destined you to be.

Don’t reject yourself, don’t let jealousy overwhelm you, stop fixing your eyes on other people’s lives on social media, stop keeping in touch with your friends only to assess who is where in the pecking order and where you belong. Remember that life is an individual race, you will have your own pain, struggles, frustrations, joys and achievements and so will they, and nobody gets out of life unscathed. Your focus should not be on other people’s blessings but completely on how to please God and do his purpose here on earth.

We are in a very feel good era in the Christian church right now, we tell people that blessings are an indication that God loves you ( and they are very much so) but that is not the complete story, I bet if you asked Job he would tell you something completely different. What good is your success to God if he cannot use you as a channel of blessings, that you pay thousands of naira or dollars in tithes doesn’t mean a whole lot to him if you are not manifesting the fruits of the spirit which are love, joy, peace and all that good stuff (John 15:8), and what happens next? You finally get what you’ve been craving, envying and striving for and when you die, eventually you will leave it all and face God who none of those things impress, what will you have to show for your faith? It is important to have goals that we strive for, achievement is the pinnacle of human existence and important to living a fulfilling life to a very large extent, learn to abide in God’s word daily, trust, believe and affirm his timing for your life, so that you are able to guard your heart from things that are just not for you. I also suggest making friends or having mentors who are older and much more experienced than you, I find that they are able to give you a broader perspective on life, and the ups and downs it brings, lastly if jealousy tries to rear its ugly head, take a deep breathe, kick it in the head and say not today Satan, that usually works!

টাস্ক ০১ এর বিস্তারিত

ধন্যবাদ! আপনাদের বই পড়ার আগ্রহের জন্য!

সারাদিন কাজ,পড়াশুনা, ড্রাইভিং সব নিয়ে ক্লান্তিকর অবস্থায় বাসায় ফিরে আপনাদের কমেন্ট দেখে আমি আমার ক্লান্তি ভুলে ল্যাপটপের কিবোর্ড নিয়ে বসলাম।❤ ভালবাসা।

আমরা খুব সহজ,সাবলীল, ছোট ছোট বই দিয়ে পড়া শুরু করবো।

বইয়ের নাম আমি ইনবক্সে একেক জনকেএকেকটা দিয়ে দিবো।

প্রত্যেকের কাজঃ

১ টা বই খুব ভালভাবে ৭ দিন সময় নিয়ে পড়া।খুব ভালভাবে। আন্ডার লাইন করে করে। নতুন ওয়ার্ড গুলোর অর্থ ওই বইয়ে ওই ওয়ার্ডের মাথায় লিখে রাখবেন। বাক্য গুলো কিভাবে, কেন ওইভাবে সাজানো হইছে সেই গুলা খেয়াল করবেন।আমি আবার বলছি মুখস্ত, বা পড়তে হবে বলেই পড়বো এমন ভাবে পড়বেন না। এইভাবে প্রতিদিন আপনি যেখানে অপচয় সময় নষ্ট করেন সেই সময়ে বইটা পড়বেন।একটা হাইলাইট পেন অবশ্যই রাখবেন এর পর বই শেষ হয়ে গেলে আপনি যেভাবে সিনেমা শেষ এ কাহিনী পুরোটা বলতে পারেন সেই রকম করে ইংলিশে ১ পাতা ভর্তি কইরা ভুল টুল কইরা কাহিনীটা লিখবেন যেটাকে বুক রিভিও বলে। আরেক পাতায় বাংলায় সুন্দর কইরা বুক রিভিও টা লিখবেন। এরপর বইয়ের কাহিনী নিয়া একটা ভিডিও বানাবেন।একটা ফোনের স্টান্ড কিনবেন সুটিং যেমনে হয় তেমনে কইরা ভিডিও বানাবেন ।যেখানে বইয়ের কাহিনী নিয়ে ৫ মিনিট মানুষরে কইবেন।কি কি কাহিনী আছে এই বইয়ে কি কি লাভ আছে এই বই পইড়া আর যখন কইবেন তখন কিন্তু ওইযে কঠিন কঠিন ওয়ার্ড গুলা শিখলেন সেইগুলা আপ্লাই করবেন। এরপর এডিং মিডিট কইরা Awesome একটা ভিডিও হইয়া গেলো।

কি কি লাভ হইলো এইটা কইরাঃ

১। আপনার রাইটিং শেকসপিয়ার লেভেল কিংবা New York Times এর সম্পাদক এর মত হইয়া যাবে।

২। আপনি পাবলিক স্পিকিং এ কোনদিনই আটকাবেন না। ইউনিভার্সিটির প্রেজেন্টেশন পানির মত হইবো। চাকুরিতে বস রে পটাইতে পারবেন।জীবনে দেখছেন গুগুলের CEO সুন্দর পিছাই কেমনে প্রেজেন্টেশন দেয়। মানুষ হা কইরা শুনে। বিলিয়ন ডলার! দেখেন ইউটিউব এ সার্চ দিয়া।ওর মায়ের ভাষা কিন্তু তামিল।!

৩। আপনি ক্যামেরার সামনে কথা কইতে শিখলেন।

৪। আপনি ভিডিও মেকার!

৫। আপনার বফ, গফ, বন্ধু বান্ধব রে রে টাইম না দিয়া আপনি টাইম কেমনে কাজে লাগাতে হয় সেইটা ও শিখছেন। মানে টাইম নস্ট করেন নাই।

৬। দুনিয়ার ২৪ ঘন্টা টাইমের মধ্যে অনন্ত এই সময়ের মধ্যে কোন পাপ করেন নাই। একবার ভাবছেন এইটা! পাপ না করার অর্থ নিজের পরকালের কোন ক্ষতি ও হয় নাই।করেন নাই!

কি হলো পারবেন না?

দেখলেন বই পইড়া কত্ত কত্ত লাভ।

Just 7 Days!

Think!

One book and a lot of New Experience You can get easily and smoothly!

I will give you a Simple Surprise after Your Awesome 7 Days not a Great surprise because You will be a GREAT SURPRISE after 7 Days!

100 Days Project

Attention Please!দ্রুত আপনার মতামত দেন।

আজকের আমার লিখা তাদের জন্য যারা SSC/O level/ HSC/A level/ মাদরাসা/ পলিটেকনিক/কারিগরি শিক্ষা/উন্মুক্ত ইউনিভার্সিটির আন্ডারে পড়াশুনা করছেন বা পাশ করেছেন বা নিকট ভবিষ্যতে এ পাশ করবেন-

-আমি আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থাইকা কইতেছি যে যারা উপরের ওই লেভেলে স্টাডি করতেছেন তাদের সবার সিলেবাস সম্পর্কে আমার একটা মোটামুটি ধারণা আছে।

-আপনি আপনার লাইফে ১০০ দিনের একটা প্ল্যান করেন। এই ১০০ দিন জীবনের সেরা ১০০ দিন হইবে এমন প্ল্যান করেন যেখানে আপনি যা করেন নাই, যা করতে চাইয়া ও পাশের বাসার আন্টি ভয়ে, লোকের ভয়ে করেন নাই, সবাই কইবে আপনি পারেন না তার জন্য করেন নাই, এমন সব কাজের লিস্ট বাহির করেন। Harvard থাইকা পাশ কইরা Nas Daily এর Nas কি ভাবে কি করতেছেন দেখেন না এম বি খরচ কইরা? আমি আপনারে কইতেছি না এত্ত বড় লেভেলের কিছু করার।আপনি আপনার একাডেমিক দিকগুলা ভাল করেন।কিছু Extra Skill ১০০ দিনেই ভাল কইরা ফেলা পসিবল। সিম্পল ভাই প্ল্যান৷ করেন আর নিজেকে ১০০ দিন সময় দেন। দেখেন তারপর কি হয়? ১০০ দিনের আগের আপনি আর ১০০ দিন পরের আপনি নিজেকেই দেইখা মনে হইবো আহ! রে আমি তো পারি! আমি সিউর কইলাম আপনি পারবেনই।একবার এগিয়ে দেখুন।আপনাকে কেউ পেছায়তে পারবে না।আমি নিশ্চিত আপনি পারবেন।

এবার আসেন আমি কয়েকটা বিষয় আলোচনা করি যেইগুলা আমি ১০০ দিনে সম্পন্ন করেছিলাম।আপনি ও করে রাখলে আপনার একধাপ এগিয়ে থাকলো।প্লিজ কাজে আসবেই!

*প্রতিদিন ১ ওয়াক্ত নামাজ হইলে ও পড়বেন।নাই মামার চেয়ে কানা মামা ভালো।৫ ওয়াক্ত আবশ্যিক। আমি পাশ্চাত্য সভ্যতায় অনেক কস্টে তবুও পড়ি।প্লিজ একটুকু তো বলতে পারবেন যে আপনি ১০০ দিনে কোনদিনই স্রস্টা কে ভুলেন নাই।১ বার হইলে ও আপনার আবশ্যিক কাজ করছেন।রেসপনসেবলিটির ৫ ভাগের ১ ভাগ মানছেন।

১। বই পড়া- (ইংরেজি নন ফিকশন) এখন অনেকেই কইবে ভাই বাংলা বই তো পড়ি না। ক্লাসের বই তো পড়ি না। কেমনে কি? আমি কইতেছি আপনারে এইটা আপনি কখনো ট্রাই ই করেন নাই। ট্রাই না কইরা কেমনে কইতেছেন? আর এইটা করলে আর বুইঝা বুইঝা পড়লে আপনার ইংরেজি Shakespeare লেভেল এ আসবে। ট্রাস্ট মি! ১০০০ দিন কোচিং কইরা যা ইংরেজি শিখবেন ১০ টা নন ফিকশন আপনারে সেইটা শিখাবে।আমি কোন দিন ব্যাচে বা বাসায় ইংরেজি প্রাইভেট পড়ি নাই! পড়ি নাই! আমার ইংরেজি দিয়া আমি থিসিস লিখছি,প্রোজেক্ট সাবমেশন করছি, প্রেজেন্টেশন দিচ্ছি, কেস স্টাডি ও করছি। ভাই আমি একটু ও আটকাইতেছি না। আমি কিন্তু বই পইড়া ইংরেজি শিখছি।

বই গুলা পড়বেন কেমনে আর পাবেন কেমনেঃ- ১০০ দিনে আপনি ৫ টা বই শেষ করবেনই করবেন – প্রতি ২০ দিনে ১ বই মাস্ট Daily ৩০-৪৫ মিনিট প্লিজ!। তাইলে ১০০ দিনে ৫ টা বই সিম্পল। যখন পড়বেন প্রত্যেকটা শব্দ বুইঝা বুইঝা পড়বেন।আন্ডারলাইন করবেন।না বুঝলে গুগুল ট্রান্সলেট এর হেল্প নিবেন। ভাই একটা কথা মনে রাখেন আপনি ১০০ দিন পর ৫ টা বই থাইকা যে পরিমান ভোকাবুলারি শিখবেন তা কোনদিনই মুখস্থ কইরা মনে থাকবো না। যখন পড়বেন তখন মনে করবেন আর নিজেকে প্রশ্ন করবেন ক্যান এইখানে এই ভাবে বাক্য স্টাকচার হইলো? একটা বাক্যকে অনেকভাবে বসানোর চেষ্টা করবেন। রিপ্লেস করবেন।Example, আপনি কিন্তু I eat rice শিখছিলেন ওইটারে কিন্তু আপনি খালি রিপ্লেস কইরা কইতে পারেন I eat বেগুন।সিম্পল। প্রত্যেকটা বাক্য এমন কইরা পড়বেন যাতে আপনি ওইটা বাস্তব জীবনে ব্যবহার করতে পারেন। বইগুলা ঢাকার নীলক্ষেত এ খুব সস্তায় পাবেন।৫ টা বই হাইস্ট ৩৫০-৪০০ টাকা লাগবে। KFC/Macdi এর বার্গার বা ৪ টা মুরগির গ্রিল এর চাইতে ও সস্তা! আপনি চাইলে গ্রুপের মধ্যে ঢাকায় থাকে এমন কারোর মাধ্যমে কুরিয়ার করা হবে। ১০০ দিন পর আপনি যা করেন নাই জীবনে তা কইরা ফেলার পর দেখবেন কেমন লাগে! অন্য রকম আপনাকে লাগবে! Awesome! 5G You!

আমি ৫ টা বইয়ের লিস্ট দিচ্ছিঃ

– Never eat alone

-Are you enough smart to work at Google?

-Frekonomics

-Rich Dad,Poor Dad

-The Power of Habit.

বই গুলা পইড়া উপকারঃ

১।ইংরেজি রাইটিং কেমন হয় তা বুঝলেন আর IELTS পরিক্ষায় এপ্লাই করলেন।শব্দ গুলা শিখলেন যা কখনোই শুনেন নাই।সেইগুলা প্র‍্যাকটিক্যালি ইউজ করবেন।তাইলে Standard Speaking ability আসবে।পড়া শেষ এ ওই বই এর রিভিও লিখলেন বাংলায় বা ইংরেজিতে। আর বই থাইকা পাওয়া শিক্ষা তো বোনাস!

২।IELTS preparation নিয়ে রাখলেন।। বাইরে পড়তে আসতে চাইলে এইটা আপনার মাস্ট দরকার।কেমনে প্রিপারেশন নিবেন আমার ফেইসবুক ওয়ালে একটা ধারণা দিয়ে লিখেছি। ফাইল,বই পত্র নোটস লাগলে আবশ্যই জানাবেন।১০০ দিনেই প্রিপারেশন নেওয়া হয়ে যাবে।কোচিং ছাড়াই। যদি তথ্য লাগে শুধু মাত্র জানাবেন।চাহিবা মাত্র দিতে বাধ্য।

৩। MS/ Excel ভাল কইরা শিখলেন। সেই লেভেলের।কোচিং লাগবে না।বাসায় ল্যাপটপ বা কম্পিউটার বা ফোনের এক্সেল Word থাকলেই হবে।- প্রতিদিন ৩০ মিনিট ফোনেই শিখেন – ১০০ দিন পর আপনি ওস্তাত।

৪। প্রতিদিন ১ পাতার একটা নোটস- ১০০ দিনে ১০০ টা। কথা দিলাম ১০০ তম নোটস আর ১ম নোটস এর পার্থক্য আপনি দেইখেন।A4 সাইজ পেজে বিভিন্ন বিষয় নিয়া ভুল ভাল কইরা ১০০ দিনের প্রতিদিন লিখেন।প্রতিদিন ২০ মিনিট লাগবে।বড়জোর!

৫। যারা আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, কানায় পড়তে আসার মন আছে। তারা SAT preparation নিলেন।অনেক স্কলারশিপ। শত শত।আপনি কোন্ দিন ও খোজ ও নেন নাই।SAT এক্সাম সম্পকে ভালো প্রিপারেশন এর জন্য ১০০ দিন এনাফ। প্রতিদিন ৩ ঘন্টা( এইটা আপনি চাইলে করতে পারেন হেল্প লাগবে অবশ্যই জানাবেন)

৬। আপনি প্রতিদিন TED ভিডিও একটা কইরা দেখবেন।টাইম মাত্র ১০ মিনিট। এর পর কি শুনলেন সেইটা নিয়ে ১-২ মিনিট আয়নার সামনে কথা কইবেন।আর সেইটা ভিডিও করবেন।১০০ দিনে ১০০ টা Public speaking কইরা ফেলায়ছেন।

৭। ১০০ দিনের মধ্যে একটা প্রশিক্ষণ নিতে পারেন।বিলিভ করেন আপনি ব্যস্ত থাকলে পাপ ও করতে পারবেন না। যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সরকারি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে খোজ নেন কি কি প্রশিক্ষণ আছে।এইটা আপনার ভবিষ্যতে অনেক কাজে দিবে।

৮।আপনি HSC/ ডিপ্লোমা শেষ। তাইলে দেশে না পড়লে বিদেশে পড়ার প্রস্তুতি নেওয়ার কথা ভাবছেন তাইলে

* পার্সপোর্ট বানান।

*IELTS এক্সাম দেন

*প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস জোগাড় করেন।

*University বাচাই কইরা এপ্লাই করেন।

*স্কলারশিপ এর খোজ নেন।প্রয়োজন হলে জানাবেন অবশ্যই হেল্প করবো।

৯। প্রতি সপ্তাহে ১ টা ইংলিশ মুভি দেখলেন।সাবটাইল দিয়া।কেমন কি কয়, কেমনে ওয়ার্ড গুলা কয় সেইটা শিখা নিলেন।কেমনে কোন জায়গায় ডায়ালোগ দেয়। এইটা অনেক হেল্প করবো আপনাকে।আপনার ইংলিশ লিসিং ডিপলপ করবে। ১০০ দিনে ১১ টা মুভি। এরপর প্রতিটি মুভি দেখার পর ২ দিন টাইম নিয়া রিভিও লেখলেন।

উপরের কাজ গুলো করবেন এরকম মানুষদের আমি চাই! আমরা একটা নতুন ১০০ দিনে অনেক গুলো পরিবর্তন চাই! আপনি যদি সত্যিই উপরের টাস্ক করতে আগ্রহী তাইলে প্লিজ কমেন্ট এ জানান।তাইলে আমরা একটা প্ল্যান মোতাবেক আগাব।আমরা সবার অগ্রগতি শেয়ার করবো।একে অপরকে জানাবো।৭ দিন পর পর সবাই যোগাযোগ করবো।প্রতিদিন এর কাজ এর প্রমানপত্র শেয়ার করব।মাত্র ১০০ দিনই তো ভাই! ১০ বছর ১২ বছরের স্কুল, কলেজ লাইফে যা শিখেন নাই যা করেন নাই তাই করবেন!

বইপত্র,নোটস সব কিছুর ব্যবস্থা করবো। কবে থেকে শুরু করা যায় তাইলে! প্লিজ!

যারা ১০০ দিনের ১ দিন ও মিস করবেন বলে এখনও মনে করছেন প্লিজ দরকার নাই।

৫ জন হইলে ও সেরা ৫ জন্য! Do you want to see you as a Different you after 100Days! You can start I am with you! Please Don’t feel hesitation be Fast and better than yesterday Yourself.

Allah bless you! We can be everything!

ধন্যবাদ আপনাদের।আসুন গ্রুপের নিয়ম রক্ষার্থে কিছু বিষয় বলিঃ

১। প্রথম কথা আপনি যদি মনে করেন এই গুলা কইরা কিচ্ছু হইবো না। বাল ছাল।প্লিজ আপনি আউট।আমাদের প্রথম লক্ষ্য শিখা ও আরেক জনকে হেল্প করা।

২। নিয়মিত আমাদের স্টাডি গুলা এইখানে প্রত্যেকটা মেম্বার জমা দিবে।

৩।কেউ কারো ব্যক্তিগত মোবাইল নাম্বার সহ অন্যান্য পারসোনাল বিষয় আলোকপাত করবো না যদি না আবশ্যিকতা থাকে বা প্রয়োজনীয়তা।

৪। ব্যক্তিগত যত ক্যারিয়ার রিলেটেড সমস্যা সব শেয়ার করা যাবে।

৫।প্রত্যেকটা প্রজেক্ট এ ইনশাআল্লাহ আমরা সবাই অংশগ্রহণ করবো।কেউ যদি একটা ও মিস দেয় তাকেই আউট।কারণ আমরা সবাই মিলে এগিয়ে যেতে চাই,কাউকে বাদ দিয়ে না।

৬। প্রত্যেকটা টাস্ক সবাই ফিলাপ করবো

৭।গ্রুপে থাইকা মইরা থাকলে হবে না।আমি আবার বলছি নিয়মিত কাজের বরকত আলাদা।

৮। কেউ কোন বিষয় এ অভিজ্ঞ হলে অবশ্যই জানাবেন।

৯। কোন বিষয় জিজ্ঞাসা করা হলে অবশ্যই উত্তর পোস্ট করবেন।

আপনাদের মতামত গুলো শেয়ার করেন।আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে করেছি। আমরা আপনাদের উল্লেখিত নিয়ম বা আইডিয়া গুলাও যথাযথ যুক্তি সম্পন্ন ভাবে যুক্ত করা হবে ইনশাআল্লাহ।

আসুন আজ থেকে হতাশা বাদ দেই।জীবনটা অনেক বড়।পৃথিবী গোল।কোথাও না কোথাও আপনার ভাগ্যটা আছে।শুধু পরিশ্রম। খুজে নেন।

ধন্যবাদ,হতাশা,আশা,জীবন

আমি যখন আমার ল্যাপটপের কি বোর্ড চেপে লিখছি তখন আপনাদের থেকে আমি হাজার হাজার কিলোমিটার দূরে। মনটা সবসময় বাংলাদেশ এ পড়ে থাকে।আমি আপনাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ । প্রথমেই এই জন্য আপনাদের ধন্যবাদ জানায় যে আপনারা ও আমার মত নতুন কিছু শিখতে ও নিজের ক্যারিয়ারের উন্নয়ন ঘটাতে আগ্রহী।এবার আসি কেন একটা Group open করার চিন্তা আমার মাথায় আসলো? আমি আপনাদের সেটা জানাচ্ছি।

আমি অনেক পরিচিতদের চিনি যারা বি বি এ , এম বি এ , ইঞ্জিনিয়ারিং ,নার্সিং কিংবা এরকম আরো অনেক বিষয় থেকে পড়াশুনা শেষ করে বেকার ও হতাশাগ্রস্থ জীবন কাটাচ্ছেন। আবার অনেককে চিনি যারা এইচ এস সি দিয়ে পছন্দের ভার্সিটিতে ভর্তি না হতে পেরে হতাশায় আছে। আবার কেউ কেউ এস এস সি দিয়েই পড়াশুনার পাট ছুকিয়ে ফেলেছে , কেউ কেউ পলিটেকনিকে পড়ছে আর ভাবছে আমায় দিয়ে কিচ্ছু হবে না।

অনেকে উচ্চশিক্ষা নিয়ে দ্বিধাগ্রস্থ। কোন সাবজেক্ট এ পড়বো কি হবে ? টাকা নাইলে চাকুরি হবে না ? এত্ত লেখাপড়া কইরা কি হইবো ? ইত্যাদি ,ইত্যাদি।

সবাই আমরা সমস্যা নিয়ে আছি ।আর আমরা যারা স্টুডেন্ট মানে আব্বু আম্মুর কাছ থাইকা টাকা নিয়া চলি তারা আরো বেশি হতাশায় কিভাবে কি করবো কোনদিকে আগাবো।বাইরে পড়তে আসার পর আমি যেটা দেখছি বাংলাদেশীরা কোন কিছুতেই পিছিয়ে নেই। শুধু মাত্র আমাদের মধ্যে অভাব হইলো ইনফরমেশনের ।ইনফরমেশন শেয়ার আর ওইটা মোতাবেক এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে আমরা সবাই মিলে একটা প্লাটফর্মে সবার জন্য কাজ করবো এটাই একমাত্র লক্ষ্য Group open করার।

আপনি হতাশায় আছেন, পড়ালেখা শেষ কইরা জব পাবেন না সেইটা নিয়া ভাবতেছেন , সিনিয়র অনেকে জব পায় নাই, বেকার আছে এইগুলা দেইখা আপনি নিশ্চয় ভাবতেছেন যে আপনি ও ওই এককাতারে । বিলিভ করেন তাদের বেশির ভাগই স্কিল ফুল নয়। ঘুষের ব্যাপারটা আছে কিন্তু আপনি স্কিলফুল নয় কিংবা আপনার পড়া সাবজেক্ট এর সাথে আপনার চাকুরির ফিল্ড আলাদা। যেমন বাংলায় অনার্স কইরা আপনি কি গ্রামীনফোনে চাকুরি আশা করেন। মানে যা শিখছেন সেইটা ভালকইরা শিখেন নাই। বাংলাদেশের চাকুরির পরিক্ষার বেশিরভাগ প্রশ্ন ক্লাস সিক্স থাইকা ক্লাস টেন এর বই মিলায়া হয়। একবার কি ভাবছেন আপনি পাটিগনিতের ম্যাথ ক্লাস এইট এ শিখছিলেন ভাল কইরা ৩য় অধ্যায় এর লাভ ক্ষতির ম্যাথ আপনি কি ভাল কইরা ব্যাখ্যা কইরা শিখছিলেন কেন দিন রাত্রি ছোট হয় ।কবে বড় দিন ।খুলেন ক্লাস সিক্স এর বই আপনি পাবেন নিশ্চিত পাবেন। আপনি কি জানেন ইউকে আর ইংল্যান্ড এর মধ্যে পার্থক্য ? আপনি কি বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচিতি বই ভাল কইরা পড়ছিলেন ক্লাস নাইন টেন এ । সব প্রশ্ন আসে বি সি এস থাইকা শুরু কইরা সব চাকুরির পরিক্ষার প্রশ্ন ।আবহাওয়া আর জলবায়ুর পার্থক্য শিখছিলেন ক্লাস সেভেন এর বই থাইকা। আপনি কি একাদশ দ্বাদশ ইংরেজি বইয়ের ১৫টা ইউনিট ভাল কইরা পড়ছিলেন কোন সিন আসবে কোন সিন আসবে না সেইটা না বিবেচনায়? আপনি কি প্রতিদিন ৩০ মিনিট ইংরেজি শুনেন যতটা না হিন্দি দেখেন। অনলাইন নিউজপেপার পড়েন? তাইলে তো কারেন্ট আফিয়ার্স লাগবে না। ইন্টারে আই সিটি বইয়ের প্রোগ্রামিং অধ্যায় প্রাক্টিক্যালি করছিলেন ? করেন নাই ।করলে ও বুইঝা কারণ সহ করেন নাই । আপনি কি ভাল কইরা পড়ছিলেন গুরুমন্ডলের কাজ কি? লঘুমস্তিক কি কাজ করে । আমি মানছি চাকুরি জীবনে এই গুলার দরকার নাইকিন্তু বাংলাদেশের স্টিস্টেম টা এই রকম আপনাকে স্টিস্টেম আর সময়ের সাথে যাইতে হবে? ওনারাও করেন নাই।মোট কথা আমরা আমাদের পড়াশুনা এ প্লাস পাইতে করি। আমাদের ফাউন্ডেশনটা অনেক দুর্বল তাই আজ ও আমাদের ইংরেজি শিখতে কোচিং, কম্পিউটার শিখতে কোচিং ,চাকুরির পরিক্ষার জন্য ও কোচিং লাগে। আরো শত শত উদাহরণ দিতে পারবো।

একটা গল্প বলি আসেন, আমি মাধ্যমিক পাশ করার পর থেকে টিউশনি করি ।উচ্চমাধ্যমিক এর পর সেটা আরো বেশি হারে করি কিছুটা শখে আবার কিছুটা তাড়নায় । আমার ক্লাস ওয়ান থাইকা ইলেভেন টুইফ এর স্টুডেন্ট ছিল। পলিটেকনিকের অনেকগুলা ভিন্ন ভিন্ন টেকনোলজির স্টুডেন্ট ছিল। সাইন্স এর স্টুডেন্ট যেমন ছিল কমার্স ও ছিল আর্টস এর স্টুডেন্ট ও ছিল । আমি যেইটা পারতাম না সেইটা বই কিনে নিয়ে এসে ,ইউটিউব আর ইন্টারনেট দেইখা শিখছি। অনন্ত এতটুকু বলতে পারি আমি বাংলাদেশের প্রাথমিক(সব ক্লাস সব সাবজেক্ট), মাধ্যমিক (সব ক্লাস সব সাবজেক্ট) , উচ্চমাধ্যমিক (ফিজিক্স,ম্যাথ, কেমিস্ট্রি,আই সি টি) পলিটেকনিক এর অনেক গুলা ডিপার্ট্মেন্ট এর সাবজেক্ট না দেখে পড়াইতাম।আমার স্টুডেন্টরা প্রমান। ভুল বুঝবেন না আমি শো অফ করছিনা কিংবা অহংকার ও করছি না ।শুধু এতটুকু বলছি যে আমি কিছুই পারতাম না ,সাইন্স পড়ে ও আর্টস পড়িয়েছি, কমার্স পড়িয়েছি ।একটাই রহস্য ছিল আমি ঘন্টার পর ঘন্টা সময় ব্যয় করেছি।হাল ছাড়ে নি। আমি এতটুকু বলতে পারি আমি চাকুরির আশা কখনোই করতাম না করি ও না ।  ১৬ বছর বয়সে ২০১৩ সালের টিউশনি করে প্রথম মাসে এপ্রিলে ১২০০ টাকা ইনকাম করি আর ২১ বছর বয়সে যেদিন টিউশনি ছেড়ে বাইরে পড়তে আসি সেইদিন আমার টিউশনির বেতন ছিল ৬৫০০০হাজার+. সরকারি স্কুল,পলিটেকনিক, ইংলিশ ভার্সন, এতিমখানা,মাদরাসা, ইউনিভার্সিটি সব জায়গায় থেকেছি দেখেছি সব কাছ থেকে।অভিজ্ঞতা নিয়েছি। যারা আমায় চিনে ব্যক্তিগতভাবে তারা জানে।ভোর বেলা ও স্টুডেন্ট পড়াইছি সেহেরি খেয়ে। ইফতারি কইরা ও স্টুডেন্ট পড়াইছি।ফজরের পর থেকে মধ্যে রাত শুধু পড়াইছি আর পড়ছি। বাইরে আসার পড়ার খরচ ৬০% আমার নিজের টাকায় আর ৪০% পরিবারের। অনেক দিন না খেয়ে কাটিয়েছি, অনেক অভাবের ভেতর থেকেছি, অনেক অনেক অসময়, কস্টকর সময় পার করেছি।সত্যি বলছি কোন কিছু অসম্ভব নয়। আপনি চেস্টা করেন নাই তাই পারেন নাই। প্লিজ আসুন আমরা পারবো এই আশা নিয়ে শুরু করি।যেটাই পারবেন ওইটাই পরিশ্রম আর ভালভাবে করেন।তাইলেই হবে। পৃথিবীতে হাজার হাজার পথ আছে সুন্দর করে বাচার।আপনি শুধু বাংলাদেশ কিংবা আপনার শহর বা গ্রামকেই পৃথিবী ভাবছেন।তাইলে ভুল করছেন।

আমি এখনই অনেক কিছু পারি না। তাই আপনাদের কাছে শিখতে চাই ।আমরা সবাই মিলে শিখতে শিখাতে চাই। আসুন শিখি!

আমি গ্রুপে সবার সত্যিকার অংশগ্রহণ কামনা করি। অল্পজন হবো কিন্তু অনেক ভাল কাজ করবো।২০১৯ এর ৩১ এ ডিসেম্বর আপনি নিজেকে নতুন আপনি হিসেবে দেখবেন ইনশাল্লাহ আমি ও! যে গুলা আগে কখনোই করেন নাই!

জিপিএ ডাজেন্ট ম্যাটার ! ইউনিভার্সিটি ডাজেন্ট ম্যাটার , ম্যাটার ইজ নলেজ ,ম্যাটার ইজ স্কিল !

I am who, Who has a Green passport but trying like a holder of Red passport!

TRYING can be the best Way!

Allah Bless you! We Can be Everything! Inshallah!

This is a list of the 1,000 most commonly spoken Malaysian words.

This is a list of the 1,000 most commonly spoken Malaysian words.

Number Malaysian in English
1 sebagai – as
2 saya – I
3 beliau – his
4 yang -that
5 beliau -he
6 adalah -was
7 untuk -for
8 pada -on
9 adalah -are
10 dengan -with
11 mereka -they
12 menjadi- be
13 di -at
14 satu- one
15 mempunyai -have
16 ini -this
17 daripada -from
18 oleh -by
19 panas -hot
20 perkataan -word
21 tetapi – but
22 apa -what
23 beberapa -some
24 adalah -is
25 ia -it
26 anda -you
27 atau -or
28 mempunyai -had
29 yang -the
30 daripada -of
31 kepada -to
32 dan -and
33 yang -a
34 dalam -in
35 kami -we
36 boleh -can
37 keluar -out
38 lain -other
39 adalah -were
40 yang -which
41 melakukan -do
42 mereka -their
43 masa -time
44 jika -if
45 akan -will
46 bagaimana -how
47 berkata -said
48 seorang -an
49 setiap -each
50 memberitahu- tell
51 tidak -does
52 set -set
53 tiga -three
54 mahu -want
55 udara -air
56 baik -well
57 juga -also
58 bermain -play
59 kecil -small
60 akhir -end
61 meletakkan —put
62 rumah —home
63 membaca —-read
64 tangan —-hand
65 pelabuhan —port
66 besar —large
67 mengeja —spell
68 menambah –add
69 walaupun —even
70 tanah— land
71 di sini —here
72 mesti —-must
73 besar—- big
74 tinggi —-high
75 seperti —-such
76 mengikuti —–follow
77 tindakan —act
78 mengapa —-why
79 meminta —ask
80 lelaki —men
81 perubahan —change
82 pergi—- went
83 cahaya—- light
84 jenis —kind
85 off —-off
86 perlu —-need
87 rumah —house
88 gambar —-picture
89 cuba—- try
90 kami —us
91 lagi —-again
92 haiwan—- animal
93 titik —–point
94 ibu —–mother
95 dunia —-world
96 berhampiran—- near
97 membina —-build
98 diri —-self
99 bumi —–earth
100 bapa—– father
101 apa-apa—- any
102 baru —new
103 kerja —-work
104 sebahagian—– part
105 mengambil—- take
106 mendapatkan —-get
107 tempat place
108 dibuat made
109 hidup live
110 di mana where
111 selepas after
112 kembali back
113 kecil little
114 hanya only
115 pusingan round
116 lelaki man
117 tahun year
118 datang came
119 persembahan show
120 setiap every
121 baik good
122 saya me
123 memberi give
124 kami our
125 di bawah under
126 nama name
127 sangat very
128 melalui through
129 hanya just
130 bentuk form
131 hukuman sentence
132 besar great
133 berfikir think
134 mengatakan say
135 membantu help
136 rendah low
137 talian line
138 berbeza differ
139 seterusnya turn
140 punca cause
141 banyak much
142 bermakna mean
143 sebelum before
144 langkah move
145 betul right
146 budak boy
147 lama old
148 terlalu too
149 sama same
150 dia she
151 semua all
152 ada there
153 apabila when
154 sehingga up
155 penggunaan use
156 anda your
157 cara way
158 mengenai about
159 banyak many
160 kemudian then
161 mereka them
162 menulis write
163 akan would
164 seperti like
165 jadi so
166 ini these
167 beliau her
168 lama long
169 membuat make
170 perkara thing
171 lihat see
172 dia him
173 dua two
174 mempunyai has
175 melihat look
176 lebih more
177 hari day
178 boleh could
179 pergi go
180 datang come
181 lakukan did
182 bilangan number
183 bunyi sound
184 ada no
185 paling most
186 orang people
187 saya my
188 lebih over
189 tahu know
190 air water
191 daripada than
192 panggilan call
193 pertama first
194 yang who
195 boleh may
196 turun down
197 sebelah side
198 telah been
199 kini now
200 mendapati find
201 kepala head
202 berdiri stand
203 sendiri own
204 laman page
205 perlu should
206 negara country
207 didapati found
208 jawapan answer
209 sekolah school
210 berkembang grow
211 kajian study
212 masih still
213 belajar learn
214 tumbuhan plant
215 perlindungan cover
216 makanan food
217 matahari sun
218 empat four
219 antara between
220 negeri state
221 menjaga keep
222 mata eye
223 tidak pernah never
224 lalu last
225 mari let
226 fikir thought
227 bandar city
228 pokok tree
229 menyeberangi cross
230 ladang farm
231 keras hard
232 permulaan start
233 mungkin might
234 cerita story
235 saw saw
236 jauh far
237 laut sea
238 menarik draw
239 meninggalkan left
240 lewat late
241 jangka run
242 tidak don’t
243 manakala while
244 akhbar press
245 rapat close
246 malam night
247 sebenar real
248 kehidupan life
249 beberapa few
250 utara north
251 buku book
252 menjalanka

আমার নিউ ল্যাংগুয়েজ শিখার প্ল্যানঃ-

ধাপঃ০১-তারিখঃ-০৫/০২/১৯ইং-১৫/০২/১৯ইং

Common 500 ইংরেজি Words এর French Language এ অর্থ বের করা এবং প্রতিদিন ১০ টা Sentences তৈরি কইরা ফেলা। প্রতিদিন ৫০ টি শব্দের অর্থ বের কইরা ফেলা । মোট ১০দিন।

ধাপঃ০২-তারিখঃ-১৬/০২/১৯ইং-২০/০২/১৯ইং

সপ্তাহের নাম, সংখ্যা মেমোরাইজ কইরা ফেলা

ধাপঃ০৩- তারিখ-২১/০২/১৯ইং-২৬/০২/১৯ইং

আরো কিছু Sentences বানানো এবং সেইগুলাকে ঝালাই কইরা নেওয়া।

২৭ তারিখ ও ২৮ তারিখ আরো বাক্য তৈরি করা

Inshallah I will Complete my plan within 28 February and Then I will do Practice more and more to Full fill my Dearm of Learning new language.

হয়ত একদিন কাজে আসবে এই অন্যভাষা শিখার ব্যাপারটা তাই শিখে রাখছি। স্যার সাব্বির আহসান এর আইডিয়াটাকে ফলো কইরা আমি আমার ল্যাংগুয়েজ লার্নিং শুরু করলাম।

আপনি ও করুন!🙂 আসেন শিখি!

UK তে এ পড়বেন টাকা নাই?Requirement এর ঘাটতি? তাইলে কি করা যায়?🙄

-UK তে এ পড়বেন টাকা নাই?Requirement এর ঘাটতি? তাইলে কি করা যায়?🙄

Read 3 minutes!

এইচ এস সি দিয়া বইসা আছেন বা দিবেন বা ইউনিভার্সিটিতে চান্স পান নাই, ড্রিপেশন, আব্বু আম্মুর প্যাড়া, ইত্যাদি ইত্যাদি! পড়ুন তাইলে!

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ নামের একটা প্রতিষ্ঠান আছে ২০০৪ সালে যেটা প্রতিস্টিত হইছে। পৃথিবীর নামী দামি অনেক বিজনেস স্কুল এর মধ্যে Heriot-Watt একটা যেইটা Uk তে আছে।যার সাথে বাংলাদেশের এই ইন্সটিটিউট Uk Qualification প্রভাইড কইরা থাকে এবং বাংলাদেশে BIMS একমাত্র প্রতিষ্ঠান যেইটা Heriot-Watt এর learning partner এবং BBA Degree অফার কইরা থাকে।এই প্রতিষ্ঠান SQA,IQN এর সাথে পার্টনারশিপ এ আছে।

এছাড়া ও BIMS হইলো ইংল্যান্ডের Institute of Chartered Accountants এর পার্টনার। আর লোকালি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড (বাকাশিবো বা BTEB) দ্বারা affiliated.

-বিদেশে পড়তে আসতে চাইলে অনেকগুলা টাকা,ভিসা, রিকোরমেন্টস আরও অনেক ফ্যাক্ট আছে।আপনি এইখান থাইকা বিবি এ কইরা তার পাশাপাশি আরো কিছু কোর্স কইরা নিলেন এই প্রতিস্টান থাইকা যেই কোর্সগুলা বিদেশে লাখ লাখ টাকা লাগে যেইটা নিজে দেখতেছি ।

1.Cyber security

2.Financial Management

3.Supply Chain Management

4.Accounting Software Tally

5.Computer Application in Financial Management

6.Public Service innovation

উপোরক্ত কোর্সের প্রাপ্ত শিক্ষা আপনার প্রফেশনাল লাইফে অনেক কাজে দিবে।বাংলাদেশ সরকারের বা বেসরকারি অনেক প্রতিস্টান এ যারা কাজ করে ওনাদের জিগান।দেখেন কইবে ওই কোর্স গুলার কত মূল্য। আমি আমার অনেক বড় ভাই আপুদের চিনি যারা প্রফেশনাল লাইফে ওই কোর্স গুলা দরকার হয় বইলা আবার ওই কোর্স গুলা করার জন্য ভর্তি হয়।

এই ৩-৪ বছর সময়টাতে ভাল কইরা IELTS preparation নিলেন, GRE বা GMAT এক্সামের প্রিপারেশন নিলেন।যাতে আপনার বিদেশে পড়ার প্রফাইলটা বাইড়া বেটার হইয়া যায়।

এবার ট্রাই করুন।যোগাযোগ করুন প্রতিষ্ঠান এর সাথে গুগুল করেন, মেইল করেন, ফোন দেন আরো বিস্তারিত শুনেন।

থেমে যাবেন না। এগিয়ে যান। দেখেন সবাই কইবে Impossible. আপনি কইরা দেখায় দিয়া কইবেন I am possible.

একবার ইমাজেন করুন, ৩-৪ বছর পর নিজের প্রফাইলটা, হতাশায় ভুগবেন না

2019-2022= BBA Degree and make your academic profile ( GRE-500+, IELTS-7.5, BBA CGPA-3.50, Publication -3 + অনেক গুলা প্রশিক্ষণ এর প্রাপ্ত শিক্ষা)

Think Big!
First, IT Is very important what you choose, because you choose what you become. But we have the possibility to make mistakes and the opportunity to change it.Don’t try to be better than others, but try to be better than yourself yesterday.

ইনফরমেশন এর অভাবটাই আমাদের দেশে বেশি। শেয়ার করুন বন্ধুবান্ধবের সাথে। যদি একজনের ও উপকার হয় তাইলেই আমি হ্যাপি।

আল্লাহ সবার ভাল করুক।আল্লাহ হাফেজ।

মাহবুব আল হাসান
তারিখঃ০৩/০২/১৯ইং।
জিমেইল:mahbubalhassan17@gmail.com

What do You want? Change!

First we creating our habits and after they creating us. Is very important what you choose, because you choose what you become. But we have the possibility to make mistakes and the opportunity to change it.

Every morning you choose our mood, what kind of clothes we will where today, lets put happiness on, it’s always fashionable. Do what makes you happy, stay with people who makes you smile, don’t try to be better than others, but try to be better than yourself yesterday.

Create your website at WordPress.com
Get started